পিঠা খেলে পিঠে সয়, পেটেও সয়!

হিটলারও বেশি কিছু চমক লাগানো জনপ্রিয় হবার মত কাজ করতেন। যেমন, তিনিই প্রথম রাষ্ট্রীয়ভাবে ধুমপান বিরোধী প্রচারণা শুরু করেছিলেন; তামাকজাত দ্রব্যের উপর উচ্চহারে ট্যাক্স বসিয়ে ধুমপানে নিরুৎসাহিতকরণের পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। হিটলার নিজে নিরামিষভোজি ছিলেন, পশু অধিকার নিয়ে এখন যে আধুনিক আন্দোলন সেটা হিটলার আরো ৮০ বছর আগেই শুরু করেছিলেন। পশু/পাখী শিকার নিষিদ্ধ করেছিলেন, চিকিৎসা সংক্রান্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষায় গিনিপিগ বা এমন নিরীহ প্রানীর ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছিলেন, পশু পরিবহন এবং জবাই করার সময় পশুকে কোন কষ্ট দিলে শাস্তির ব্যবস্থা চালু করেছিলেন। যদিও মানুষকে কষ্ট দিয়ে হত্যা করার ক্ষেত্রে তার উৎসাহের কোন কমতি ছিল না এবং চিকিৎসা গবেষণায় পশুর পরিবর্তে ইহুদীদের ব্যবহার করেছিলেন।

কবিতার নাম: 'চাকর-বাকরের সাথে মাটিতে বসে পিঠা ভক্ষন শেষে তাদের দিয়ে জুতা চাটানো মানবিকতার জয়!'

[খামোখাই মানুষ এরশাদকে পল্টিবন্ধু ডাকে! বিশিস ফেডারেশনের নেতারাই বা কম কিসে!]