পুলিশ বাহিনী কি সত্যিই দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছেন ??

‘আমি মধুর ভাষায় অভিনন্দন জানাই যাঁরা আজ বিএনপি এবং জাতীয় পার্টি থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগদান করলেন। আমি তাদের সাধুবাদ জানাই যে তারা দেরিতে হলেও বুঝতে পেরেছে যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ছাড়া কোনো গতি নাই।’ এটা কোনো রাজনৈতিক দলের নেতার বক্তৃতা নয়। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মতিন প্রধান একটি অনুষ্ঠানে এই বক্তব্য দেন।

ওসি মতিন স্থানীয় সাংসদ মোতাহার হোসেনের প্রশংসা করে বলেন, ‘এত পরিশ্রমী একজন সৎ লোক থাকা সত্ত্বেও তাঁকে এখন পর্যন্ত ফুল মিনিস্টার (পূর্ণমন্ত্রী) করা হয়নি।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার তাঁর অধস্তনের এই ধরনের বক্তব্য দেয়ার ব্যাপারে কিছু বলতে রাজি হননি।

অন্যদিকে বাংলাদেশে ব্যাংকের কর্মকর্তা রাব্বীর উপর নির্যাতনকারী পুলিশ কর্মকর্তা এসআই মাসুদ সাময়িক ভাবে বরখাস্ত হবার পর বলেন “দেশবাসী আপনাদের নিকট আমার প্রশ্ন প্রকৃত অর্থেই আমার কি অপরাধ ছিল? আমার অপরাধ একটাই আমি স্বাধীনতার পক্ষের লোক, আমি শহীদ পরিবারের সন্তান। স্বাধীনতার পক্ষের সকল ব্যক্তিদের নিকট অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধীরা আজ আমার মতো একজন মুজিব আদর্শের সৈনিকের ‘মৃত্যু’ ঘটিয়ে দিল। আমার মতো আর কারও যেন এমন ‘মৃত্যু’ না হয়?”

সুশৃঙ্খল একটি বাহিনী এভাবেই উত্শৃঙ্খলতার চরম প্রকাশ ঘটিয়ে বোধ করি বিলুপ্তির দিকেই এগিয়েই যাচ্ছে। Well done BD Police...Go ahead..